আজ শনিবার ║ ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ শনিবার ║ ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ║ ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ:

    কর্ণফুলীতে ৭ বছরে ৭ ইউএনও’র বদলি!

    Share on facebook
    Share on whatsapp
    Share on twitter

    দেশের সর্বকনিষ্ঠ উপজেলা কর্ণফুলীতে গত ৭ বছরে ৭ জন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বদলি হয়েছেন। এছাড়াও আরও একজন ইউএনও পদায়িত হলেও কর্ণফুলীতে যোগদান না করেই তিনি অন্যত্রে বদলি নিয়েছেন। এভাবে নতুন একটি উপজেলায় ঘন ঘন ইউএনও’র বদলিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

    কেনোনা, ছোট উপজেলা হিসেবে খ্যাত কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায়ও এত সংখ্যক ইউএনও বদলি হবার ঘটনা ঘটেনি। কর্ণফুলী উপজেলায় মাত্র পাঁচটি ইউনিয়ন। স্থানীয়দের ধারণা, রাজনৈতিক কোন্দল কিংবা জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয়হীনতার কারণেই ঘন ঘন ইউএনও বদলি হচ্ছে এখানে!

    তথ্যমতে, কর্ণফুলী উপজেলার প্রথম ইউএনও হিসেবে যোগদান করেছিলেন মোহাম্মদ আহসান উদ্দিন মুরাদ। ২০১৭ সালের ১৭ এপ্রিল তিনি পদায়িত হন। নিয়োগের মাত্র ৩ মাসের মাথায় তাঁকে বদলি করা হয়। বদলির ৮ দিন পর তা আবার স্থগিত করা হয়। ঠিক পরের দিন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় আবারও তাকে বদলি করেন।

    এরপর, ২০১৭ সালের ৫ জুলাই আহসান উদ্দিন মুরাদের স্থলাভিষিক্ত হন নতুন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিজেন ব্যানার্জী। বর্তমানে যিনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক। তিনি বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের ২৯ তম ব্যাচের কর্মকর্তা ছিলেন। নিজ বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার জুড়ি উপজেলা। তিনিও ১ বছরের বেশি সময় থাকতে পারেননি। বদলি হলেন।

    এরপর ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর কর্ণফুলীতে তৃতীয়তম উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করেন সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। তিনি ছিলেন ৩০ তম বিসিএসের কর্মকর্তা। বর্তমানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (কুমিল্লার এডিএম)। নিজ জেলা ফেনী। তিনি ১ বছর ৪ মাস ৭ দিন পর বদলি হন তিনিও।

    পরে কর্ণফুলী উপজেলার নতুন ইউএনও হিসেবে নিয়োগ পান ৩১তম বিসিএস (প্রশাসন) কর্মকর্তা প্রবীর কুমার রায়। তিনি কর্ণফুলী উপজেলার আদেশ বাতিল করে কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় তাৎক্ষণিক বদলি নেন।

    এর মধ্যে ২০২০ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি নতুন ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন ২৯তম বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডার মোঃ নোমান হোসেন। বর্তমানে পদোন্নতি পেয়ে তিনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি)। নিজ জেলা লক্ষীপুর সদর উপজেলা।
    তিনি কর্ণফুলীতে যোগদানের ৫ মাস যেতে না যেতেই একই বছরের ১৬ জুলাই তিনিও বদলি হন। যদিও করোনাকালে তিনি কিছুদিন কর্ণফুলীতে কাজ করে ছিলেন।

    একই আদেশে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের অতিরিক্ত কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে কর্ণফুলী উপজেলায় নতুন ইউএনও হিসেবে পদায়িত হন আরেক বিসিএস ক্যাডার শাহিনা সুলতানা। তিনি ছিলেন ২৮ তম ব্যাচের কর্মকর্তা। ৩০ জুলাই উপজেলায় যোগদান করে সবার রেকর্ড ভেঙ্গে তিনি ১ বছর ৮ মাস ২৮ দিন সংশ্লিষ্ট উপজেলায় কর্মরত থেকে সুনাম কুড়িয়েছেন।

    পরে ১৩ এপ্রিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে তাকে উপজেলা থেকে সরিয়ে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের উপ-পরিচালক পদে বদলি করা হয়। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের ডিডিএলজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

    ওই বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে আবার কর্ণফুলী ইউএনও হিসেবে মো. মামুনুর রশীদকে পদায়ন করা হয়েছে। তিনি ৩৪ তম বিসিএসের কর্মকর্তা ছিলেন। নিজ জেলা চাঁদপুর। এ উপজেলায় তিনি ২০২২ সালের ০২ অক্টোবর থেকে ১ বছর ২ মাস ১৩ দিন দায়িত্ব পালন করেন।

    কিন্তু ২০২৩ সালের ৭ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সম্মতিক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন-২ শাখার উপসচিব ভাস্কর দেবনাথ বাপ্পীর স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাঁকেও বদলি করা হয়। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ইস্যুতে।

    পরে ১০ ডিসেম্বর কর্ণফুলী উপজেলার নতুন ইউএনও হিসেবে পদায়িত হন দীপংকর তঞ্চঙ্গ্যা।তিনি ৩৩ তম বিসিএস কর্মকর্তা। নিজ জেলা পার্বত্য বান্দরবান। এর আগে তিনি কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

    কিন্তু আশ্চর্যের বিষয়, তিনিও মাত্র ১ মাস ২১ দিন দায়িত্ব পালনের পর গতকাল ৩১ জানুয়ারি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রেষণ-১ অধিশাখার উপ-সচিব আব্দুল্লাহ আরিফ মোহাম্মদ স্বাক্ষরিত এক আদেশে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে বদলি হন।

    তাঁর পরিবর্তে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কাউকে নতুন ইউএনও হিসেবে কর্ণফুলীতে পদায়ন করা হয়নি। তবে ২০১৭ সালে থেকে ২০২৪ সালের এই ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত এই অল্প সময়ে মোট ৭ জন বিসিএস ক্যাডারের বদলি হয়।

    ১লা ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ শামীম আলম বলেন, আজ কর্ণফুলীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে মাসুমা জান্নাতকে পদায়ন করা হয়েছে।

    একই উপজেলায় ৭ বছরে ৮ জন ইউএনও কে বদলি ও পদায়ন বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মোহাম্মদ শামীম আলম বলেন, সরকারি চাকরির নিয়ম মোতাবেক বদলি পদায়ন একটি স্বাভাবিক বিষয়। অনেক সময় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকেও উপজেলায় সরাসরি ইউএনও পদায়ন করা হয়। সিনিয়রদের পদোন্নতি জনিত কারণেও নতুনদের পদায়ন করা হয়।

    প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৯ মে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার)-এর ১১২ তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকার চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলাধীন চরলক্ষ্যা, চরপাথরঘাটা, শিকলবাহা, জুলধা ও বড়উঠান ইউনিয়ন সমন্বয়ে কর্ণফুলী থানাকে উপজেলায় উন্নীতকরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে ২০১৭ সালের ২৯ এপ্রিল কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের আনুষ্ঠানিক ও দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু হয়।

    Share on facebook
    Share on twitter
    Share on whatsapp
    Share on linkedin
    Share on telegram
    Share on skype
    Share on pinterest
    Share on email
    Share on print

    সর্বাধিক পঠিত

    আমাদের ফেসবুক

    আমাদের ইউটিউব