আজ শনিবার ║ ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ শনিবার ║ ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ║১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ║ ৯ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ:

    চট্টগ্রামের আনোয়ারা-কর্ণফুলীতে উৎসবে আমেজ

    সড়ক জুড়ে ব্যানার-ফেস্টুনে ব্যয় ২ কোটি টাকা

    Share on facebook
    Share on whatsapp
    Share on twitter

    চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থেকে আনোয়ারার কেইপিজেড গেইট মুখ জুড়ে ১২ কিলোমিটার রাস্তায় হাজার হাজার বিলবোর্ড ব্যানার পেস্টুন। ২৮ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর টানেল উদ্বোধন ও প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে ঘিরে এ আয়োজন। দুই উপজেলায় উৎসবের আমেজে প্রায় ২ কোটি টাকার বিলবোর্ড সাটানো হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

    সরেজমিনে দেখা যায়, ওয়ার্ড থেকে ইউনিয়ন, ইউনিয়ন থেকে উপজেলা আওয়ামীলীগ , যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগের নামে ব্যানার ও বিলবোর্ড লাগানো হয়েছে সব জায়গায়। কর্ণফুলীর শিকলবাহা ওয়াই জংশন, দৌলতপুরের কেইপিজেড, আনোয়ারার চাতরী ও কাফকো কলোনি সংলগ্ন কেইপিজেড গেইট মাটিতে চোখ ফেলার জায়গা নেই।

    স্থানীয়রা জানান, টানেল ও প্রধানমন্ত্রীর জনসভা দুটোই ভূমিমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকায় হওয়াতে গত এক মাস ধরে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সব মিলিয়ে দক্ষিণ চট্টগ্রামে এখন দারুন উজ্জীবিত আওয়ামীলীগ ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনগুলো।

    স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আনোয়ারায় এত অধিক বিলবোর্ড ও ব্যানার অতীতে কখনোই দেখা যায়নি। বলা যায় বিলবোর্ড নিয়ে এক ধরনের প্রতিযোগিতা চলছে। কেন্দ্রীয় নেতা, সংসদ সদস্য ও আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপ্রত্যাশী সবাই আলাদা আলাদা বিলবোর্ড ও ব্যানার লাগিয়েছেন।

    দক্ষিণ জেলা সেচ্ছাসেবলীগের এক সিনিয়র নেতা জানান, প্রধানমন্ত্রীর সফরের প্রচারে তিনি একাই ২০০ ব্যানার করেছেন। নেতাদের অনেকে আরো বেশি করেছেন। অসুস্থ কোন প্রতিযোগিতা নেই। ভোটের আগে এটি দলের অবস্থান জানান দেয়ার একটি অংশ।

    বিজ্ঞাপন ব্যবসায়ীরা জানান, বিলবোর্ডের ব্যানার ছাপানো, স্ট্যান ভাড়া কিংবা গাছের ফ্রেম তৈরি, লাগানোর মজুরি ইত্যাদি মিলিয়ে একটি বিলবোর্ডে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ। আর ব্যানারের ক্ষেত্রে ছাপানোর চেয়ে লাগানোর খরচ পড়ছে বেশি। সব মিলিয়ে ব্যানার ও বিলবোর্ডের খরচ ২ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে তার ধারণা।

    আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক এম এ মান্নান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আনোয়ারা উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, টানেল সড়ক, জনসভার আশপাশের স্থলসহ পুরো উপজেলার ১১ ইউনিয়নে পোস্টার সাটানোহয়েছে। ত্বোরণ নির্মান, ব্যানার, বিলবোর্ডের মাধ্যম ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বর্তমান সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

    Share on facebook
    Share on twitter
    Share on whatsapp
    Share on linkedin
    Share on telegram
    Share on skype
    Share on pinterest
    Share on email
    Share on print

    সর্বাধিক পঠিত

    আমাদের ফেসবুক

    আমাদের ইউটিউব